যে ৮টি জিনিসের ঘ্রাণ আপনার মানসিক চাপ নিমিষেই কমিয়ে দেবে!

current food51

ব্যস্ত এই জীবনে মানসিক চাপ কার নেই? অফিস, বাসা, সম্পর্ক, টাকা পয়সার চিন্তা ইত্যাদি সব মিলিয়ে আমরা একেকজন দুশ্চিন্তার ডিপো। দিন শেষে মনের ওপর প্রচণ্ড একটা চাপ নিয়ে ঘুমাতে যান বেশিরভাগ মানুষ, আর ফলে সকালেও দিন শুরু হয় টেনশন আর উদ্বেগ নিয়ে। সাথে বিষণ্ণতা, খিটখিটে মেজাজ ইত্যাদি তো আছেই। চলুন, পরিচয় করিয়ে দেই এমন কিছু ঘ্রানের সাথে যেগুলো মানসিক চাপ কমাতে সহায়ক। একটু বুদ্ধি করে নিজের দৈনন্দিন জীবনে সামিল করে ফেলুন এই সুঘ্রাণগুলো। দেখবেন মানসিক চাপ কমে গিয়েছে অনেকটাই!

বেবী পাউডার

আপনার ছোট্ট সোনামণির ব্যবহৃত পাউডার এর গন্ধ বা ঘ্রাণ কমিয়ে দেবে আপনার মানসিক চাপকেও। কারণ এর গন্ধ আপনাকে ফিরে নিয়ে যাবে শৈশবের স্মৃতিতে, জাগিয়ে তুলবে একটা নিরাপত্তার ভাব।

ভ্যানিলা

ভ্যানিলার গন্ধ আপনাকে দ্রুত ঘুমাতে সাহায্য করবে এবং এর গন্ধটি খুব সহজেই আপনাকে রিল্যাক্স সাহায্য করবে আপনি যতই মানসিক চাপে থাকেন না কেন! ঘুমানোর পূর্বে ভ্যানিলা ফ্লেভারের কিছু খেয়েই দেখুন না।

ল্যাভেণ্ডার

এটি একটি সুগন্ধি ফুলের গাছ। এই ফুলের সুবাস আপনার মানসিক চাপকে খুব অল্প সময়েই কমিয়ে দিতে সাহায্য করবে। গোসলের পানিতে ব্যবহার করতে পারেন ল্যাভেন্ডার ওয়েল বা পারফিউম ব্যবহার করুন এই ফ্লেভারের।

ভালবাসার মানুষের ঘ্রাণ

আপনি যদি কোন কঠিন মানসিক চাপে ভোগেন আর সেই সময়েই যদি আপনার ভালবাসার মানুষটি পাশে বসে হাতটি ধরে, আপনাকে জড়িয়ে রাখে বুকে এবং সাত্বনা দেয়, তবে আপনার মানসিক চাপ অনেকাংশেই কমে যাবে। ভালোবাসার মানুষের শরীরের ঘ্রাণ মন ভালো করতে তুলনাহীন।

তরতাজা কেক

কোন মানসিক চাপে মনটা প্রচন্ড খারাপ হয়ে আছে? তবে আপনি খেতে পারেন আপনার পছন্দের এক টুকরো সদ্য বেক করা কেক। গবেষণায় দেখা গেছে কেকের সুঘ্রাণ কমিয়ে দেয় মানসিক চাপকে।

শসা

শসার গন্ধ আপনার উদ্বেগ কমাতে যথেষ্ট কার্যকরী ভূমিকা রাখবে। দিনে একবার তাজা শসায় তৈরি সালাদ খান। কিংবা দিন শেষে চোখের ওপর দুই টুকরো শসা রেখে শুয়ে থাকুন বিশ মিনিট। মন তো ফ্রেশ লাগবেই, চোখ গুলোও আরাম অয়াবে।

ক্যামোমিল

ক্যামোমিল-এর চা আপনাকে দেবে তাজা অনুভতি আর প্রশান্তি।

লেমন গ্রাস

লেমন গ্রাসের তাজা গন্ধ আপনার মানসিক চাপকে দূর করতে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে। ঘরে রাখতে পারেন এই ফ্লেভারের এয়ার ফ্রেশনার। আপনার দৈনন্দিন রান্নাতেও ব্যবহার করতে পারেন লেমন গ্রাস।

writer: Nahid Nazmus
I would like to share my knowledge with others as well as learn the unknown things. “There is no tomorrow, do today whatever you want to do”

(2962)

Related posts:

মন্তব্য

মন্তব্য