ওয়ালেট বা ভ্যানিটি ব্যাগে যেসব জিনিস রাখা বিপজ্জনক

womens_leather_purse_986600_1

তথ্য-প্রযুক্তি ছাড়া একটা দিন কল্পনা করা যায় না। আবার প্রযুক্তি কারণে আমরা নানাভাবে জালিয়াতি ও হয়রানির শিকারও হচ্ছি। যেমনঃ এ.টি.এম কার্ডের পাসওয়ার্ড হ্যাক হচ্ছে নতুন পন্থায়। তবে প্রযুক্তির ইতিবাচক প্রভাবই বেশি। আর যতটুকু নেতিবাচক দিক আছে তার জন্য প্রয়োজন সচেতনতা-সতর্কতা। যার একটি অংশ হিসেবে এই লেখায় পার্স/ ওয়ালেটে যা বহন করা উচিত নয় তেমন কিছু বিষয় তুলে ধরা হলো। যা সম্ভাব্য অনেক বিপদ থেকে রক্ষা করবে।

ক্রেডিট কার্ড

বাংলাদেশে এখন অনেকে কম বা বেশি ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করছেন। যাদের একের অধিক কার্ড রয়েছে তাদের একসাথে সব কার্ড ওয়ালেট বা ভ্যানিটি ব্যাগে বহন করা উচিত না। কেননা দূর্ঘটনার শিকার হলে আপনাকে সব কার্ড একসাথে বাতিল করতে হবে । তাই দৈনন্দিন প্রয়োজন ও চাহিদার হিসেবে সবচেয়ে দরকারী কা্র্ডটি সাথে রাখুন।

চেক বই

আপনার ভ্যানিটি ব্যাগে বা ওয়ালেটে কখনো চেক বই রাখা উচিত নয়। কেননা ছিনতাই,চুরি, মলম পার্টি ইত্যাদি প্রতিনিয়ত ঘটে চলেছে। এছাড়াও হারিয়ে ফেলা, কোথাও ভুলে রেখে আসা ব্যাপারটি তো আছেই। আপনিও এসব থেকে মুক্ত নন। যে কেউ আপনার চেক বইকে কাজে লাগিয়ে আপনার যাবতীয় তথ্য-ব্যাংকিং হিসাব নম্বর জেনে,স্বাক্ষর নকল করে আপনাকে বিপদে ফেলতে পারে। তাই সর্তক থাকতে হবে। ঘর থেকে বের হওয়ার পূর্বে অবশ্যই একবার বসে দেখে নিন ব্যাগে কি আছে, কি নেই।

ইউ.এস.বি ডিভাইস

প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় আমরা যেমন অনেক কাজ এক সাথে করতে পারছি। তেমনি অনেক ক্ষেত্রে সময়ও বাঁচিয়ে দিচ্ছে বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু একটু অসচেতনতায় ক্ষতিও হতে পারে মারাত্মক। যেমনঃ বর্তমানে অনেক গোপনীয়,অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য আমরা ইউ.এস.বি ডিভাইসে সংরক্ষণ করি,আদান-প্রদান করে থাকি। এ্মন ডিভাইস যদি ওয়ালেট বা পার্সে রাখা হয় তবে যেকোন দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা,আশংকা থেকে যায়। তাছাড়া যা হয়ত কাউকে দেখাতে চান না,এভাবে বহন করার ফলে সহজে এটি অন্য কারো নজরে পড়তে পারে। এমনটা ঘটলে ব্যাগের সাথে সাথে আপনার মূল্যবান অনেক কিছু হারিয়ে ফেলতে পারেন।

মোটা অংকের টাকা

প্রতিদিনের জীবন যাপনের জন্য ওয়ালেট বা পার্সে টাকা রাখতেই হয় নিঃসন্দেহে। তবে প্রয়োজনের অতিরিক্ত না রাখাই মঙ্গল। কেননা যেভাবে যাচ্ছেন সেইভাবে ফিরে আসতে পারবেন তার কোন গ্যারান্টি আপনি দিতে পারবেন না। বেশি টাকা বহন করতে হলে নিরাপদ অন্য ব্যবস্থা নিন।

ক্রয়ের রসিদ

কেউ যদি মোটা বাজেটের কোন কিছু ক্রয় করে থাকেন। যেমনঃ স্বর্ণ অলংকার । তবে সেই ধরণের রসিদ কখনো ওয়ালেট/পার্সে রাখা উচিত না। কেননা সব কিছুর সাথে তাল মিলিয়ে প্রতারণা, চুরি-ডাকাতিও ডিজিটাল হচ্ছে দিন দিন। অনেক রসিদে ক্রেডিট কার্ডের তথ্য ও স্বাক্ষর থাকে । যা আরো বিপদজনক। প্রতারক চাইলে রসিদের মাধ্যমে আপনার ঠিকানা খুঁজে বের করে নতুন কৌশলে বিপদে ফেলতে পারেন।

(2722)

Related posts:

মন্তব্য

মন্তব্য