যেভাবে নিজের শখকে সফল ব্যবসায় পরিণত করবেন

index

আপনি কি আপনার দিনের অর্ধেক সময় ব্যয় করেন ছবি আঁকাতে? নাকি ভাল লাগে লিখতে? অথবা যেখানেই যান না কেন সঙ্গী হিসেবে থাকে আপনার ক্যামেরাটা? প্রায় কল্পনা করেন, যদি আপনার শখটাই আপনি নিজের জীবিকা হিসেবে গ্রহন করতে পারতেন কতই না ভাল হতো? তবে চলুন পাঠক জেনে নিই কিভাবে আপনার শখকে একটি ব্যবসায় রূপান্তর করতে পারবেন।

১) ভাবতে হবে প্রচুর

যে কোন একটি ব্যবসায় শুরু করতে প্রথমেই অনেক পরিকল্পনা আর চিন্তা ভাবনার দরকার। ভাবতে হবে আপনার পণ্যটির চাহিদা কেমন, কিভাবে বিজ্ঞাপন করলে সহজেই প্রচুর মানুষের চোখে পড়বে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে প্রশ্নটি সেটি হল, এটি করতে গিয়ে আপনার পড়ালেখার কোন ক্ষতি হবে কিনা তা ভেবে দেখা। মনে রাখবেন, প্রথমেই একটি ভাল পরিকল্পনা করা মানেই সাফল্যের দিকে অনেকখানিই এগিয়ে যাওয়া।

২) আপনার মার্কেট প্রতিষ্ঠা করুন

  • কে কিনবে আপনার পন্য?
  • কিভাবে এটি তারা সহজে পাবে?
  • কিভাবে সহজেই আপনার পন্যের খুঁটিনাটি সম্পর্কে তাদের জানাবেন?

এই প্রশ্নগুলোর উত্তর দিয়ে শুরু করুন। টার্গেট করুন কোথায় আছে আপনার ক্রেতারা। তারপর শুরু করুন ঠিক সেখান থেকেই।

৩) মূলধন জোগাড় করুন
আপনি যখন আত্মবিশ্বাসী যে আপনার ব্যবসা একটি লাভজনক ব্যবসায়ে পরিণত করতে পারবেন, তখন থেকে মূলধন জোগাড় করতে শুরু করুন। আপনার বাবা-মা, বন্ধু-বান্ধব থেকে ধার এবং আপনার জমানো টাকা একসাথে করলেই দেখবেন আপনার প্রয়োজনীয় মূলধন জোগাড় হয়ে গেছে।

৪) পণ্যের মূল্য নির্ধারণ করুন
মূল্য নির্ধারণের ক্ষেত্রে আগে আপনার কতটুকু খরচ হয়েছে তা বের করুন এবার তার উপর শতকরা হিসেবে লাভ নির্ধারণ করতে পারেন। পণ্যের মূল্য নির্ধারণে প্রতিযোগী প্রতিষ্ঠান, বাজারের অবস্থা কেমন এ বিষয়গুলোও মাথায় রাখতে হবে।

৫) বিজ্ঞাপনে কৌশলী হোন
‘অন্ধকারে সাজগোজ করে কাউকে দেখাতে চাওয়া আর বিজ্ঞাপন ছাড়া ব্যবসায় পরিচালনা একই ব্যাপার।’ প্রথমে আপনার ব্যবসায়ের জন্যে একটি চমৎকার নাম আর একটি একটি শ্লোগান বেছে নিন। যেমন ফটোগ্রাফির ক্ষেত্রে আপনার শ্লোগানটি হতে পারে ‘সময়কে বেঁধে রাখুন স্মৃতিতে।’

আর আপনার ব্যবসায়ের জন্য আকর্ষণীয় লোগো তৈরিতে ডিজাইনার কোন বন্ধুর সাহায্য নিতে পারেন। এইবার ফেসবুকে একটি পেইজ খুলে ফেলুন, যেখানে কেন আপনার পণ্য অন্যদের চেয়ে আলাদা, কেন আপনার পণ্য ভোক্তারা বেছে নিবে তা সুন্দরভাবে সংক্ষিপ্ত আকারে উপস্থাপন করুন। এছাড়া দৈনিক পত্রিকায়, মাসিক ম্যাগাজিনে বিজ্ঞাপন দিতে পারেন।

৬) সফলতার জন্যে ধৈর্য ধরুন
বিভিন্ন সফল ব্যবসায়ী যারা নিজ শখকে জীবিকা হিসেবে গ্রহন করেছে, তাদের ইতিহাস পড়লে বুঝতে পারবেন যে, কেউ কিন্তু সহজে সাফল্যের মুখ দেখেনি। ধরতে হয়েছে ধৈর্য। তাই প্রথম প্রথম লাভের মুখ না দেখলেও ধৈর্য ধরে, মনোযোগ দিয়ে কাজ করে যান। সাফল্য আপনার মুঠোয় ধরা দিবেই।

৭) পাকাপাকিভাবে সব কিছুর হিসাব রাখুন
ব্যবসায়ের শুরু থেকেই আপনার খরচ এবং আয়ের সকল খুঁটিনাটি হিসাব পাকাপাকিভাবে লিখে রাখুন। কেননা আপনাকে অবশ্যই বুঝতে হবে আপনার ব্যয়ের চেয়ে আয় নাকি আয়ের চেয়ে ব্যয় বেশি হচ্ছে। হিসাব না রাখলে একটা সময়ের পরে কিন্তু আপনাকে সমস্যায় পড়তে হতে পারে।

নিজের শখকে ব্যবসায়ে পরিণত করতে নিতে হবে চ্যালেঞ্জ, মাথা রাখতে হবে ঠাণ্ডা হতে হবে বিচক্ষণ। এই সব কিছুর সম্মিলন ঘটাতে পারলে ধরে নিন আপনার পা সফলতার সিঁড়িতেই আছে।

আমি বহুদিন যাবত মনোবিজ্ঞান এবং আত্ম উন্নয়ন নিয়ে পড়ছি। এছাড়াও আমি কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ারিং করছি। আমি শিখাতে পছন্দ করি এবং আত্ম উন্নয়ন সম্পর্কিত বিষয়ে মানুষকে সাহায্য করতে ভালোবাসি যেন অন্যরাও তাদের জীবনে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারেন। আমি সবসময় সুখি থাকার চেষ্টা করি এবং সফলতার বিষয়ে উচ্চাকাঙ্ক্ষা রাখি।

(997)

Related posts:

মন্তব্য

মন্তব্য